দীপিকা পাডুকোন এর পরিচয় অভিযোগ ওষুধ সম্পর্কিত অসংখ্য চ্যাটে প্রকাশিত হয়েছে

দীপিকা পাডুকোন এর পরিচয় অভিযোগ ওষুধ সম্পর্কিত অসংখ্য চ্যাটে প্রকাশিত হয়েছে

দীপিকা পাডুকোন এর পরিচয় অভিযোগ ওষুধ সম্পর্কিত অসংখ্য চ্যাটে প্রকাশিত হয়েছে

বলিউড তারকাদের ওষুধের সাথে সংযুক্ত করার প্রমাণ যে তদন্ত সংস্থাটি প্রমাণ করেছে তার উপর তদন্ত সংস্থা কাজ করায় দীপিকা পাড়ুকোনকে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি) তলব করার কথা রয়েছে। এনসিবির সূত্র অনুসারে, জয়া সাহার সাথে হ্যাশ চাওয়ার কথা বলার পরে কর্তৃপক্ষ অভিনেতার বিরুদ্ধে আরও প্রমাণ পেয়েছে।

দীপিকা পাডুকোন এর পরিচয় অভিযোগ ওষুধ সম্পর্কিত অসংখ্য চ্যাটে প্রকাশিত হয়েছে। এতে সোশ্যাল মিডিয়া হতবাক হয়ে গেছে।

মঙ্গলবার বলিউড-ড্রাগের জোটের অভিযোগের তদন্তকারী নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনকে চাইলে তলব করতে পারে, মঙ্গলবার এক আধিকারিক উল্লেখ করেছেন।

এনসিবি সূত্র উল্লেখ করেছে যে ওষুধের কথা বলা হয়েছে ওষুধ নিয়ে মূলত ওষুধ নিয়েই আলোচনা করা হচ্ছে সংস্থাটির রাডারে।সেগুলির মধ্যে কয়েকটি আড্ডা পডুকোনর তত্ত্বাবধায়ক কারিশমা প্রকাশ এবং একটি “ডি” এর মধ্যে রয়েছে।

এনসিবি এই সপ্তাহে অভিনেতা রাকুল প্রীত সিং এবং সারা আলি খান এবং ডিজাইনার সিমোন খাম্বট্টকেও তলব করতে পারে বলে উল্লেখ করেছেন এই কর্মকর্তা।ফেডারেল অ্যান্টি ড্রাগস সংস্থা ইতিমধ্যে কারিশমা প্রকাশ এবং কেডব্লিউএএন দক্ষতা প্রশাসন প্রশাসনের সিইও ধুরভ চিত্রগোপেকারকে তদন্তের প্রসঙ্গে তলব করেছে।

দু’জনকেই সম্ভবত আজ বিকেলে এনসিবি জিজ্ঞাসাবাদ করবে বলে তিনি উল্লেখ করেছেন।

“এনসিবি প্রথমে কারিশমা প্রকাশকে প্রশ্ন করবে এবং প্রয়োজনে অভিনেতা দীপিকা পাড়ুকোনকে তলব করতে পারে,” এই কর্মকর্তা উল্লেখ করেছেন।অভিনেতার পরিচয়টি প্রকাশের খুব শীঘ্রই, তিনি মাইক্রোব্লগিং ওয়েব সাইটে ট্রেন্ড শুরু করলেন।

তাই মাদক কাণ্ডে দীপিকার নাম জড়াতেই তাঁকে একহাত নিয়েছেন কঙ্গনা। পাশপাশি আজ ‘কওয়ান ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি’কে উদ্দেশ্য করে কঙ্গনা লেখেন, “ওই সংস্থার সহ প্রতিষ্ঠাতা অনির্বাণ এর আগেও অনেক মহিলাকে ধর্ষণ করেছে। অনেক দিন আগে একটি মেয়ে তাঁর মায়ের সঙ্গে ওই ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করতে যায়। বাইরে মা’কে বসিয়ে রেখে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে অনির্বাণ। মা পুলিশে অভিযোগও জানিয়েছিলেন। মিডিয়া তা কভারও করেছিল। কিন্তু আচমকাই সব চুপ হয়ে যায়।’’

দীপিকার পাশপাশি কর্ণ জোহর, ভিকি কৌশল, শাহিদ কপূর, অর্জুন কপূরকে মাদক যোগে গ্রেফতারের জন্য সুর চড়ান তিনি।

শুধু কঙ্গনা বা অকালি দলের নেতাই নন, দীপিকার উপর নেমে আসা এই বজ্রাঘাতে নেটাগরিকদের বেশিরভাগই অভিনেত্রীর উপর ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন। অভিযোগ প্রমাণ হওয়ার আগেই নেটাগরিকদের কাঠগড়ায় দীপিকা কার্যত ‘দোষী’।